শুক্রবার সকালে তারকেশ্বর মন্দিরে রীতি মেনে পুজো দিয়ে নিজের মনোনয়নপত্র জমা দিলেন স্বপন দাশগুপ্ত। তারকেশ্বর বিধানসভা কেন্দ্রে প্রবীন সাংবাদিক, প্রাক্তন রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাশগুপ্তকে বিজেপি তাদের প্রার্থী মনোনিত করেছে।

এদিন সকালে দলীয় কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে স্বপনবাবু তারকেশ্বর মন্দিরে গিয়ে পুজো দেন এবং তার পরে চন্দননগর এসডিও অফিসে গিয়ে নিজের মনোনয়নপত্র জমা করেন। তিনি এসডিও অফিসের কর্মী, আধিকারিকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, প্রচুর লেখালিখির কাজ করতে হয়েছে কিন্তু এসডিও অফিসের কর্মীদের সহায়তায় বিষয়টি মসৃনভাবে শেষ হয়েছে।

তারকেশ্বরের প্রার্থী হিসেবে বিজেপি তাঁর নাম ঘোষণা করার পর গত ১৬ মার্চ রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে তিনি পদত্যাগ করেন। তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ মহুয়া মৈত্র’র একটি ট্যুইট নিয়ে সাময়িক বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। ১৫ মার্চ মহুয়া ট্যুইটারে লিখেছিলেন, ‘‘বাংলার নির্বাচনে স্বপন দাশগুপ্ত বিজেপি’র প্রার্থী। সংবিধানের দশম তফসিলে বলা রয়েছে রাজ্যসভার কোনও মনোনীত সদস্য শপথগ্রহণ করার ৬ মাস পর যদি কোনও রাজনৈতিক দলে যোগ দেন, তাহলে তাঁর সদস্যপদ বাতিল হয়ে যায়। স্বপন শপথ নিয়েছিলেন ২০১৬-র এপ্রিলে। এখনও কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত নন। বিজেপি-তে যোগ দেওয়ার জন্য এখনই তাঁর সদস্যপদ বাতিল করতে হবে।’’ স্বপণবাবু মহুয়ার ট্যুইট নিয়ে কোন‍ও বাক্য ব্যায় করেননি। ১৬ তারিখ তিনি রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দেন।

এবারের নির্বাচনে তারকেশ্বরের বিজেপি প্রার্থী স্বপন দাশগুপ্ত’র উপর সংবাদমাধ্যমের বিশেষ নজর রয়েছে। বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় এলে যাদের মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব দিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে তাঁদের মধ্যে স্বপনবাবু অন্যতম।